কোহলি কখনও তরুণদের আইডল হতে পারবে না!

কেপটাউনে তৃতীয় দিনে ঋষভ পান্তের অসাধারণ সেঞ্চুরি ছাপিয়ে গেছে শেষ বিকেলের ডিআরএস বিতর্কে। ডিন এলগার রিভিউ নিয়ে বেঁচে যাওয়ার পর স্টাম্প মাইকে নিজেদের ক্ষোভ ঝেড়েছেন বিরাট কোহলি, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, লোকেশ রাহুল।

তবে সবচেয়ে বেশি সমালোচনা হচ্ছে কোহলির শরীরী ভাষা নিয়ে। ভারতের টেস্ট অধিনায়কের এমন শরীরী ভাষা দেখার পর গৌতম গম্ভীর মনে করেন, কোহলি কখনও তরুণদের আইডল হতে পারবে না কেপটাউনে তৃতীয় দিনের শেষ বিকেলে দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় ইনিংসের ২১তম ওভারে বোলিংয়ে আসেন অশ্বিন। এলগার ডিফেন্স করলেও বলের লাইন মিস করায় তা সরাসরি বাঁহাতি এই ব্যাটারের প্যাডে আঘাত হানে।

অশ্বিন আবেদন করতেই এলগারকে আউট দেন আম্পায়ার। খালি চোখে দেখে মনে হচ্ছিলো বল নিচুতে রয়েছে এবং ব্যাটার আউট হয়েছেন। এলগার খানিকটা ভেবে অনেকটা অনিচ্ছাকৃতভাবেই রিভিউ নেন। রিভিউতে বল উইকেট মিস করতে দেখা যায়। তাতেই ২২ রানে জীবন পান এলগার। রিপ্লে দেখে আম্পায়ার ইরাসমাস বলে বসেন, ‘এটা অসম্ভব।’

বিরাট কোহলিসহ ৩০ গজের ভেতরে থাকা বেশিরভাগ ফিল্ডারই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। স্টাম্প মাইকের কাছে গিয়ে কোহলি বলেন, ‘তোমাদের দলের দিকে মনোযোগ দাও বল উজ্জ্বল করার সময়। শুধু প্রতিপক্ষের দিকে খেয়াল রাখলে চলবে না। সবসময় শুধু লোকজনকে ধরার চেষ্টা!’ এদিকে রাহুল বলেন, ‘পুরো দেশের বিপক্ষে ১১ জনকে (ভারতীয়) খেলতে হচ্ছে।’ যা পরবর্তীতে স্টাম্প মাইকে শুনতে পাওয়া যায়।

অশ্বিন অবশ্য তীর ছুঁড়ে দিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সম্প্রচারকারী সংস্থা সুপারস্পোর্টের দিকে। ডানহাতি এই অফ স্পিনার বলেন, ‘সুপারস্পোর্টের অন্যভাবে জেতার পথ খোঁজা উচিত।’ স্টার স্পোর্টসে আলোচনার সময় ভারতের ক্রিকেটারদের এমন দৃষ্টিকটু আচরণের সমালোচনা করেছেন গম্ভীর। বিশেষ করে কোহলিকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন তিনি। গম্ভীর বলেন, ‘কোহলি খুবই অপরিণত। ভারতীয় একজন অধিনায়ক এরকম কথা বলছেন স্টাম্প মাইকে,

এর চেয়ে বাজে কিছু আর হতে পারে না।’ ‘এসব কাজ করে কখনোই তরুণদের জন্য আদর্শ হতে পারবে না। প্রথম ইনিংসে ৫০-৫০ ক্যাচ হয়েছিলে তখন তুমি নিরব ছিলে। এমনকি মায়াঙ্ক আগারওয়ালের আবেদনের সময়ও।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *