কোহলির পদত্যাগের অপেক্ষাতেই ছিলেন রোহিত-রাহুলরা

সম্প্রতি পুরো ক্রিকেটবিশ্বের কাছে আলোচনার পাত্র বনে গেছেন ভারতীয় সুপারস্টার ক্রিকেটার বিরাট কোহলি। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ হারের পর ভারতের অধিনায়কের দায়িত্ব ছেড়েছেন তিনি। অধিনায়ক হিসেবে প্রশংসা করলেও-

লোকেশ রাহুল-রোহিত শর্মারা কোহলির নেতৃত্ব ছাড়ার অপেক্ষায় ছিলেন বলে মনে করেন রশিদ লতিফ। স্বেচ্ছায় টি-টোয়েন্টি অধিনায়কত্ব ছেড়েছিলেন বিরাট কোহলি। এরপর একপ্রকার জোর করেই ওয়ানডের অধিনায়কত্ব কেড়ে নেয়া হয়েছিল তার। এবার আচমকা টেস্টের অধিনায়কত্ব ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন অভিজ্ঞ এই ব্যাটার। কিন্তু সফল অধিনায়ক পদত্যাগ করার পরও রাহুল-রোহিতরা প্রতিবাদ না করায় অবাক হয়েছেন লতিফ।

ইউটিউব শো কট বিহাইন্ডে রশিদ বলেন, ‘কোহলি একজন বিশ্ব খ্যাত তারকা। আপনি কাকে এরপর অধিনায়ক করবে? রোহিত ফিট নয়। সে পুরো দক্ষিণ আফ্রিকা সফর থেকে ছিটকে গিয়েছে। সুতরাং, সে নিতান্তই আনফিট। লোকেশ রাহুল ক্যাপ্টেন হওয়ার যোগ্য নয়।’ ‘তাছাড়া আমি খেলোয়াড়দের মানসিকতা ঠিক বুঝতে পারিনি। আমি সবার প্রতিক্রিয়া দেখলাম। রাহুল, রোহিত, সবাই বিষয়টা মেনে নিয়েছে। যদি তোমরা মনে করো যে

কোহলি এতই ভালো, তাহলে কেন ওর পদত্যাগ মেনে নিলে? দেখে মনে হচ্ছে যেন তোমরা অপেক্ষা করছিলেন কোহলি কখন পদত্যাগ করবে।’ কোহলির অধীনে ৬৮টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছে ভারত। এর মধ্যে ৪০টি ম্যাচেই জয় পেয়েছে তার দল। এর মধ্যে ১৭টি ম্যাচে হার ও ১১টি ম্যাচে ড্র করেছে কোহলির দল। শতাংশের হিসেবে ভারত তার অধীনে জিতেছে ৫৮.৮২ ভাগ ম্যাচে। সব মিলিয়ে ক্রিকেট ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ ম্যাচ জয়ী অধিনায়ক কোহলি।

সাদা পোশাকে সবচেয়ে সফল অধিনায়ক গ্রায়েম স্মিথ। তার অধীনে দক্ষিণ আফ্রিকা জিতেছে ৫৩ ম্যাচে। দ্বিতীয় স্থানে আছেন অস্ট্রেলিয়ার রিকি পন্টিং। তার অধীনে অজিরা জয় পেয়েছে ৪৮ ম্যাচে। তাদের পরই তিন নম্বরে অবস্থান কোহলির।

Leave a Reply

Your email address will not be published.