মেসির স্ত্রী এ কি বললেন!!

দুজন খুবই ভালো বন্ধু। জাতীয় দলে লম্বা সময় একে অপরের সঙ্গে জুটি বেঁধে খেলেছেন। ক্লাব ফুটবলেও একসঙ্গে খেলার সম্ভাবনা জেগেছিল, যদিও শেষ পর্যন্ত তা আলোর মুখ দেখেনি। বলা হচ্ছে লিওনেল মেসি ও সের্হিও আগুয়েরোর কথা।

এ দুজন এতই কাছের বন্ধু যে লম্বা সময় ধরে জাতীয় দলের দায়িত্ব পালনকালে দুজন থাকতেন একই কক্ষে। যে কারণে আগুয়েরোকে না পেয়ে কাতার বিশ্বকাপে মেসি আলাদা ঘরে থাকছেন বলেও সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছিল বিশ্বকাপের শুরুর দিকে।হৃদ্‌রোগের কারণে আগাম অবসরে যাওয়াতেই মূলত বিশ্বকাপে খেলা হচ্ছে না আগুয়েরোর। নয়তো মেসিদের এই দলে তাঁর থাকাটা অনেকটা নিশ্চিতই ছিল। তবে বিশ্বকাপে না থাকলে শেষ আটের ম্যাচের আগে দলকে অনুপ্ররেণা দিতে মেসির সঙ্গে মজার এক ভিডিও আড্ডা দিয়েছেন আগুয়েরো।

সেই আড্ডায় শুরুতে মেসির সঙ্গে ছিলেন পাপু গোমেজ।এই আলোচনায় পরে যোগ দেন রদ্রিগো দি পল ও লিয়ান্দ্রো পারেদেসও। এই আলাপে দর্শক হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন আড়াই লাখ‍ের বেশি মানুষ। সেখানে পাপু গোমেজের ডেভিড বেকহামের মতো চুলের স্টাইল নিয়ে হাজির হওয়া, আর্জেন্টিনা দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে আগুয়েরোর আচরণ এবং মেসির কক্ষে এসে অন্য খেলোয়াড়দের ঘুমানোসহ নানা বিষয় নিয়ে হাস্যরসিকতা করেছেন তাঁরা।সেই আড্ডার একপর্যায়ে সাবেক ম্যানচেস্টার সিটি তারকা আগুয়েরো মেসির উদ্দেশে আসা ভক্তদের মন্তব্যগুলো পড়তে শুরু করেন।

কেউ একজন লিখেছেন, ‘তুমি দারুণ।’ তবে মন্তব্য পড়া দ্রুতই থামিয়ে দেন মেসি। আর্জেন্টাইন মহাতারকা এ সময় পাপু গোমেজের উদ্দেশে বলেছেন, ‘দাঁড়াও, আমার স্ত্রী (আন্তোনেলা রোকুজ্জো) আমাকে লিখছে। সে কী বলছে তা পোড়ো না।’ মেসির মন্তব্য ঘিরে আবার হাসির রোল ওঠে।১৮ মিনিট ২৯ সেকেন্ডের এই ভিডিওতে বেশির ভাগ সময় মেসি–আগুয়েরোরা পার করেছেন হাস্যরসিকতায়। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে শেষ আটের ম্যাচের আগে নিজেদের উৎফুল্ল রাখতেই হয়তো মেসিদের এই আড্ডা।

যেখানে মাঠ না থাকলেও দূর থেকে তাঁদের জন্য শুভকামনা নিয়ে হাজির থাকবেন আগুয়েরোও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *