বাংলাদেশের বিপক্ষে সেঞ্চুরিই কোহলির ‘বিরাট অভিশাপ’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৭০টি সেঞ্চুরি করে শচীন টেন্ডুলকার ও রিকি পন্টিংয়ের পরেই রয়েছেন সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটার বিরাট কোহলি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা পন্টিংকে ছুঁতে কোহলির দরকার আর মাত্র একটি সেঞ্চুরি।

কিন্তু সেই সেঞ্চুরি যেন কোহলির কাছে ‘সোনার হরিণ’ হয়ে দাঁড়িয়েছে। দুই বছর আগে ২০১৯ সালের ২৩ নভেম্বর বাংলাদেশের বিপক্ষে নিজের সবশেষ আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি করেছেন কোহলি। এরপর আর পাচ্ছেন না সেঞ্চুরির দেখা। কোহলির ক্যারিয়ারে সেঞ্চুরির অপেক্ষার সবচেয়ে বড় সময় এটি। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টেস্ট মিলে মোট পাঁচটি সেঞ্চুরি করেছেন ভারতের অধিনায়ক। মজার বিষয় হলো, প্রতিবারই বাংলাদেশের বিপক্ষে সেঞ্চুরির পর কোহলিকে দীর্ঘসময় থাকতে হয়েছে সেঞ্চুরি বঞ্চিত।

১. ১০২*(৯৫) বনাম বাংলাদেশ, ২০১০
সেঞ্চুরিবঞ্চিত ইনিংস: ১৫= ২০১০ সালে বাংলাদেশ-ভারত-শ্রীলঙ্কা তিন এশিয়ান দেশ মিলে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ হয়েছিল বাংলাদেশে। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে ৯৫ বলে ১১ চারে ১০২ রানের ইনিংস খেলেছিলেন কোহলি।যেখানে ভারতের ইনিংসের ফিনিশিং টাচ কোহলিই দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসানকে চার মেরে। এরপর ১৫ ইনিংস আর সেঞ্চুরি করতে পারেননি তিনি।

২. ১০০* (৮৩) বনাম বাংলাদেশ, ২০১১
সেঞ্চুরিবঞ্চিত ইনিংস: ২৪ ইনিংস= ম্যাচটি ছিল ওয়ানডে বিশ্বকাপে কোহলির প্রথম ম্যাচ। পাশাপাশি ২০১১ সালের আসরের উদ্বোধনী ম্যাচও। সেদিন রেকর্ড করতে কোহলি নিশানা বানান বাংলাদেশকে। ইনিংসের শেষ ওভারের পঞ্চম বলে শফিউল ইসলামকে মিড অনে ঠেলে সিঙ্গেল নিয়ে বিশ্বকাপে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি করে উল্লাসে মাতেন কোহলি। কিন্তু এরপর ২৪ ইনিংসেও পাননি সেঞ্চুরির দেখা।

৩. ১৩৬ (১২২) বনাম বাংলাদেশ, ২০১৪
সেঞ্চুরিবঞ্চিত ইনিংস:২৫= দুইবার মিরপুরে বাংলাদেশকে কাঁদানোর পর কোহলি এবার বেছে নেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামকে। এবারের উপলক্ষ্য এশিয়া কাপ। নিজেদের প্রথম ম্যাচে ১২২ বলে ১৬ চার ও ২ ছক্কায় ১৩৬ রানের ইনিংস খেলে স্বাগতিকদের থেকে ম্যাচ কেড়ে নিয়েছিলেন কোহলি। তবে এরপর থেকে ২৫ ইনিংস তিন অঙ্ক ছোঁয়া হয়নি তার।

৪. ২০৪ (২৪৬) বনাম বাংলাদেশ, ২০১৭
সেঞ্চুরিবঞ্চিত ইনিংস: ১৫= এবারে বদলেছে সংস্করণ,একই সঙ্গে বদলেছে দেশও। বাংলাদেশের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভারত। প্রায় ৫ ঘণ্টা উইকেটে থেকে ২৪৬ বলে ২৪ চারে ২০৪ রানের অধিনায়কোচিত ইনিংস খেলেন কোহলি। যা কোহলির চতুর্থ টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরি। এরপর ১৫ ইনিংস আর সেঞ্চুরি করে হেলমেট খোলার উপলক্ষ্য পাননি তিনি।

৫. ১৩৬ (১৯৪) বনাম বাংলাদেশ, ২০১৯
সেঞ্চুরিবঞ্চিত ইনিংস: ৫৬*= কোহলি হয়তো এই দিনটিকে ক্যালেন্ডারের পাতায় দাগিয়েই রাখতে চাইবেন। কারণ এই টেস্টটি ছিল গোলাপি বলের টেস্ট। যা ছিল আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেরও অংশ। ম্যাচটি ছিল প্রথম আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ চক্রের (২০১৯-২০২১) ভারত-বাংলাদেশ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট। কলকাতায় দিবারাত্রির টেস্টের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ ১০৬ রানে অলআউট হলে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করে ভারত।

১৯৪ বলে ১৮ চারে ১৩৬ রানের স্মরণীয় ইনিংস খেলেন কোহলি। কিন্তু এরপর থেকে এখন পর্যন্ত আর কোনো সেঞ্চুরি করতে পারেননি। তিন ফরম্যাট মিলে ৫৬ ইনিংসে অনেক হাফসেঞ্চুরি থাকলেও, পাননি তিন অঙ্কের দেখা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *