বিশাল খবরঃ আইপিএল নিলামের আগেই নতুন দলে যোগ দিচ্ছে এই পাঁচ খেলোয়াড়!

নিয়ম অনুযায়ী দুই নয়া ফ্র্যাঞ্চাইজি নিলামের টেবিলে বসার আগে তিন জনকে সই করাতে পারবে। দুই নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজির তাই তৎপরতা তুঙ্গে। নভেম্বরে যত শেষের পথে এগিয়ে আসছে ততই ধুকপুকানি বাড়ছে সমস্ত ফ্র্যাঞ্চাইজির অন্দরমহলে।

ডেডলাইন যে এগিয়ে এল। নিলামের আগে কোন তারকাকে ধরে রাখবে সমস্ত ফ্র্যাঞ্চাইজি, তা বোর্ডকে জানানোর শেষ দিন ৩০ নভেম্বর। একবার রিলিজ করে দেওয়ার পরে আরটিএম কার্ডও এবার ব্যবহারের সুযোগ নেই। সেই সঙ্গে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের দুর্ভাবনা বাড়িয়েছে নতুন দুই দলের জন্য বোর্ডের নিয়ম। রিটেন করার পরে যে ক্রিকেটারদের রিলিজ করবে আট ফ্র্যাঞ্চাইজি, সেই ক্রিকেটারদের মধ্যে তিনজন করে ক্রিকেটারকে নিলামে যাওয়ার আগেই সই করাতে পারবে লখনৌ এবং আহমেদাবাদ ফ্র্যাঞ্চাইজি।

যে তিন ক্রিকেটার নয়া ফ্র্যাঞ্চাইজিরা বেছে নেবে, তাঁদের আর নিলামে ওঠানো হবে না। অর্থাৎ নিয়মের ফাঁদে চারজনকে রিটেন করার পরেও যদি কোনও তারকাকে পুনরায় নিলাম থেকে কিনতে চায় সংশ্লিস্ট ফ্র্যাঞ্চাইজি, সেক্ষেত্রেও সেই ক্রিকেটার বেহাত হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা প্রবল। একাধিক ক্রিকেটার এবার নিলামের টেবিলে যাওয়ার আগেই নতুন দুই ফ্র্যাঞ্চাইজিতে নাম লিখিয়ে ফেলতে পারেন।

কেএল রাহুল: একাধিক প্রতিবেদনে দাবি করা হচ্ছে কেএল রাহুল পাঞ্জাব কিংস ছাড়তে চলেছেন। প্রত্যেক মরশুমেই ব্যাট হাতে দুরন্ত খেললেও পাঞ্জাব বরাবরের মত ব্যর্থদের তালিকায় নাম লিখিয়েছে। এই টানা ব্যর্থতাতেই বীতশ্রদ্ধ হয়ে নতুন দলে নাম লেখাতে পারেন। জানা যাচ্ছে সঞ্জীব গোয়েঙ্কার লখনৌ ফ্র্যাঞ্চাইজিতে যেতে পারেন তিনি। ইতিমধ্যেই তাঁর কাছে বড়সড় প্রস্তাব চলে।গিয়েছে। নতুন দলে নতুম কোচিং স্টাফ এবং নয়া প্লেয়ারদের স্কোয়াড নিয়ে অধিনায়কত্ব করে নিজের ভাগ্য ফেরাতে মরিয়া তারকা ক্রিকেটার।

ডেভিড ওয়ার্নার: আইপিএলের অন্যতম সফল তারকা। ব্যাটে এবং নেতৃত্বে দুর্ধর্ষ পারফর্ম করে সানরাইজার্সকে ২০১৬-য় চ্যাম্পিয়নও করেছেন তারকা। তবে গত এক বছর ধরে হায়দরাবাদ ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছে তারকার। নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরে তারপর প্ৰথম একাদশ এবং এমনকি স্কোয়াড থেকেও সরিয়ে দিয়ে তীব্র অপমান করতে হয়েছে ওয়ার্নার। ওয়ার্নারকে যে নিলামের আগে হায়দরাবাদ রিলিজ করে দেবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে অজি সুপারস্টার নিলামের টেবিলে যাওয়ার আগেই নতুন দল পেয়ে যেতে পারেন আহমেদাবাদ অথবা লখনৌ-তে। সেই সম্ভবনা বেশ জোরালো।

শ্রেয়স আইয়ার: দিল্লি ক্যাপিটালসে চোটের কারণে সরে যাওয়ার পরেই পন্থের কাছে অধিনায়কত্ব বেহাত হয়েছে শ্রেয়স আইয়ারের। এরপরে শ্রেয়স শ্রেয়স পুনরায় নেতৃত্বের ইচ্ছাপ্রকাশ করলেও দিল্লি ম্যানেজমেন্ট পন্থকেই নেতা হিসেবে চালিয়ে যাওয়ার পক্ষপাতী। অধিনাকত্বের তাগিদেই শ্রেয়সের দিল্লি ক্যাপিটালস ছাড়া প্রায় চূড়ান্ত। এই সুযোগে তারকা ক্রিকেটারকে নিয়ে নিতে পারে লখনৌ অথবা আহমেদাবাদ। নিলামের আগেই।

সূর্যকুমার যাদব: মুম্বইয়ের ব্যাটিং বিভাগের অন্যতম সেরা অস্ত্র সূর্যকুমার যাদব। সূর্যকুমারকে রিলিজ করে নিলামের টেবিল থেকে ফের একবার কেনার স্ট্র্যাটেজি রয়েছে মুম্বইয়ের। তবে তারকা ক্রিকেটারকে রিলিজ করার পরে সরাসরি আহমেদাবাদ বা লখনৌ সূর্যকুমারকে সই করিয়ে নিলে সেই অপশনও হারাবে মুম্বই। জানা যাচ্ছে, যে চার তারকাকে রিটেন করবে মুম্বই, সেই তালিকা প্রায় চূড়ান্ত। রোহিত শর্মার সঙ্গেই রিটেন করার তারকাদের মধ্যে রয়েছেন জসপ্রীত বুমরা। এছাড়াও কায়রণ পোলার্ডের সঙ্গে শেষমুহূর্তের আলোচনা চালাচ্ছে ফ্র্যাঞ্চাইজি। ঈশান কিষানকেও সম্ভবত রিটেন করার পথে হাঁটবে পাঁচবারের আইপিএল জয়ী ফ্র্যাঞ্চাইজি।

কাগিসো রাবাদা: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালসের রিটেনশনের তালিকায় কাগিসো রাবাদার নাম নেই। দিল্লি ক্যাপিটালস ক্যাপ্টেন ঋষভ পন্থের সঙ্গেই রিটেন করতে চাইছে আনরিখ নর্জে এবং অক্ষর প্যাটেলকে। তবে রাবাদার নাম না থাকা ক্রিকেট মহলে বেশ আশ্চর্যের। কারণ প্রোটিয়াজ স্পিডস্টার যে কোনও টি২০ দলের সম্পদ। গত মরশুমেই ৩০ শিকার সমেত কাগিসো রাবাদা বেগুনি টুপির মালিক হয়েছিলেন।

আইপিএল ২০২১-এ ১৫ জনকে আউট করেন তারকা। ২০১৯-এ আবার মাত্র ১২ ম্যাচে ২৫ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন।।রাবাদাকও দিল্লি ছেড়ে দিলে, নিলামের আগেই লখনৌ অথবা আহমেদাবাদ কিনে নিতে পারে তারকাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *