৪৩ বছরেও চেন্নাইয়ের হয়ে আইপিএলে খেলবেন ধোনি!

ধোনি আগেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, এখনই আইপিএল থেকে অবসর নয়। তারপরই সিএসকে রিটেন করতে চলেছে তারকাকে। ধোনির আইপিএল অবসর নিয়ে ভালমত জল্পনা চলছে। এমন অবস্থায় বড়সড় ঘোষণা করতে চলেছে সিএসকে কর্তৃপক্ষ।

এক কিংবা দু মরশুম নয়, ধোনিকে আগামী তিন মরশুমের জন্যই রিটেন করতে চলেছে চেন্নাই সুপার কিংস। সরকারিভাবে এমনটা এখনও না জানালেও, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই জানিয়ে দিতে পারে সদ্য চ্যাম্পিয়ন দল। ধোনি ছাড়াও সিএসকে রিটেন করতে চলেছে রবীন্দ্র জাদেজা এবং অলরাউন্ডার রুতুরাজ গায়কোয়াড। ওপেনার রুতুরাজ চেন্নাইকে চ্যাম্পিয়ন করার ক্ষেত্রে বড়সড় ভূমিকা নিয়েছিলেন।

বোর্ডের নিয়ম অনুযায়ী, সর্বাধিক চারজনকে রিটেন করতে পারে সমস্ত ফ্র্যাঞ্চাইজি। সেক্ষেত্রে চতুর্থ তারকা হিসাবে সিএসকে মঈন আলিকে রাখতে চাইছে। বোর্ড সচিব জয় শাহ জানিয়ে দিয়েছেন, মেগা নিলামের পরে ভারতেই হবে পরবর্তী আইপিএল। সেই কথা মাথায় রেখেই মঈন আলিকে চেন্নাইয়ের পিচে ব্যবহার করার স্ট্র্যাটেজি রয়েছে হলুদ জার্সিতে। তবে মঈন আলি থাকতে রাজি না হলে সিএসকে স্যাম কুরানকে রিটেন করতে চাইবে।

জানা যাচ্ছে, বোর্ডের কাছে ইতিমধ্যেই সমস্ত ফ্র্যাঞ্চাইজি তাঁদের রিটেন করা তারকাদের নাম পাঠিয়ে দিয়েছে। ৩০ নভেম্বরে মধ্যেই রিটেন করা তারকাদের নাম বোর্ডের কাছে জমা দিতে হবে। ডিসেম্বরে হবে আইপিএলের মেগা নিলাম। সিএসকে ধোনিকে রিটেন করছে, এমন ঘটনা মোটেই অপ্রত্যাশিত নয়। কারণ এখনও ধোনির ব্র্যান্ড ভ্যালু আকাশছোঁয়া। সেই ব্র্যান্ড ইমেজকেই পুরোদস্তুর কাজে লাগাতে চাইছে সিএসকে।

ধোনি কয়েক দিন আগেই নিজের অবসর জল্পনা উড়িয়ে জানিয়ে দিয়েছিলেন, চেন্নাইয়েই শেষ আইপিএল ম্যাচ খেলতে চান তিনি। ৪০ বছরের মহাতারকাকে যে ৪৩ বছর পর্যন্ত আইপিএলে দেখা যাবে, তা কার্যত নিশ্চিত। ঘটনাচক্রে, সিএসকে এই প্ৰথমবার রিলিজ করতে চলেছে সুরেশ রায়নাকে। এমনিতে রায়না খেলার মধ্যে নেই। ফর্মও নেই। এমন অবস্থায় রায়নাকে রিলিজ করতে চলেছে চেন্নাই। এদিকে, দিল্লি ক্যাপিটালসের পক্ষে ধরে রাখা হচ্ছে ঋষভ পন্থ, আনরিখ নর্জে, অক্ষর প্যাটেল এবং পৃথ্বী শ-কে।

দলকে নেতৃত্ব দেবেন পন্থ। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শ্রেয়স আইয়ার দলকে নেতৃত্ব দিতে চেয়েছিলেন। তবে দিল্লি আবার নেতা হিসেবে চাইছে পন্থকেই চাইছে। সেই কারণেই শ্রেয়স আইয়ারকে শেষমেশ রিলিজ করে দেওয়া হচ্ছে। এদিকে, অনেক ফ্র্যাঞ্চাইজি আবার চার জনকেও ধরে রাখার পথে হাঁটছে না। এতে নিলামে অর্থের ঘাটতি দেখা যেতে পারে। মুম্বই ইন্ডিয়ান্স যেমন রোহিত শর্মার সঙ্গে রিটেন করছে জসপ্রীত বুমরাকে।

কায়রণ পোলার্ডকেও ধরে রাখতে চাইছে ফ্র্যাঞ্চাইজি। কথাবার্তা চালানো হচ্ছে ফ্র্যাঞ্চাইজির পক্ষ থেকে। সূর্যকুমার যাদবকে ছেড়ে দিয়ে পুনরায় নিলামেই তাঁকে নেওয়ার পরিকল্পনাও করা হচ্ছে। এছাড়াও মুম্বই ঈশান কিষানকেও রিটেন করার পথে হাঁটতে পারে। আইপিএলের দুই নয়া ফ্র্যাঞ্চাইজি আরপি সঞ্জীব গোয়েঙ্কা এবং সিভিসি ক্যাপিটালস আবার বেশ কিছু শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটারকে বাজিয়ে দেখছে। জানা যাচ্ছে, সঞ্জীব গোয়েঙ্কার লখনৌ ফ্র্যাঞ্চাইজির নেতা করা হতে পারে কেএল রাহুলকে।

পাঞ্জাব কিংসের সঙ্গে বাকি রাহুলের বিচ্ছেদ পর্বও হয়ে গিয়েছে। গোয়েঙ্কার প্রস্তাবে রাজি কেএল। সূর্যকুমার যাদবকে লখনৌয়ে খেলার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তবে এখনও নিজের সম্মতি জানাননি মুম্বই তারকা। কলকাতা নাইট রাইডার্স আবার সুনীল নারিন এবং আন্দ্রে রাসেলকে রিটেন করছে। বরুণ চক্রবর্তীকেও রিটেন করতে চাইছে নাইটরা। তবে ভেঙ্কটেশ আইয়ার নাকি শুভমান গিলকে রিটেন করা হবে, সেই বিষয়ে এখনও দ্বিধায় ফ্র্যাঞ্চাইজি।

সিএসকে: এমএস ধোনি, রবীন্দ্র জাদেজা, রুতুরাজ গায়কোয়াড, মঈন আলি/ স্যাম কুরান। দিল্লি ক্যাপিটালস: ঋষভ পন্থ, অক্ষর প্যাটেল, আনরিখ নর্জে, পৃথ্বী শ
মুম্বই ইন্ডিয়ান্স: রোহিত শর্মা, জসপ্রীত বুমরা, ঈশান কিষান (সম্ভবত), কায়রণ পোলার্ড (কথাবার্তা চলছে)   কেকেআর: সুনীল নারিন, আন্দ্রে রাসেল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *